অমর একুশে ফেব্রুয়ারি পালিত হল সাসকাচুয়ানে

17

অমিত উকিল: কানাডার সাসকাচুয়ান প্রদেশের রাজধানী রিজাইনা এবং সাসকাটুনে যথাযথ মর্যাদা আর ভাবগম্ভীর পরিবেশে উৎযাপিত হল অমর একুশ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। বাংলাদেশি কমিউনিটি অ্যাসোসিয়েশন অব সাসকাচুয়ান (বিকাশ) আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে পতাকা উত্তোলন, শিশু-কিশোরদের চিত্রাংকন ও হাতের লেখা প্রতিযোগিতা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ।
২৪ ফেব্রুয়ারি শনিবার সাসকাটুনের এডেন ব্যোমেন কলিজিয়েট এ সন্ধ্যা ৬টায় বাংলাদেশের ও কানাডার জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনার মাধ্যমে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আরম্ভ হয়। এরপর সাসকাটুন বাংলা স্কুলের শিক্ষার্থীরা দলীয় নৃত্য পরিবেশন করে। এবারের অনুষ্ঠানের অন্যতম উল্লেখযোগ্য দিক ছিল জার্মান, রাশিয়া, নেপাল আর চিনের শিশু-কিশোরদের অনন্য পরিবেশনা। স্থানীয় শিল্পীরা পরিবেশন করে, ‘ওরা আমার মুখের ভাষা’, ‘সালাম সালাম হাজার সালাম’, ‘আমরা প্রতিবাদ করতে জানি’, ‘মোদের গরব মোদের আশা’, ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে’সহ আরো বেশ কিছু দেশের গান। নৃত্য, কবিতা আবৃত্তি ও নাট্যংশ উপস্থিত দর্শকদের আনন্দ দেয়। ইউনিভার্সিটি অব সাসকাচুয়ানের শিক্ষার্থীদের পরিবশনাগুলো মন্ত্রমুগ্ধের মত উপভোগ করে প্রবাসীরা। অনারারি কনসালটেন্ট অব বাংলাদেশ মিঃ রবার্ট নারিস বিশেষ অতিথির ভাষণে এরকম সুন্দর অনুষ্ঠান অয়োজনের জন্য সকল বাংলাদেশীদের ধন্যবাদ জানান। এরপর শিশু-কিশোরদের চিত্রাংকন ও হাতের লেখা প্রতিযোগিতার পুরষ্কার প্রদান করে বিকাশের উপদেষ্টা ও সদস্যবৃন্দ। সাসকাচুয়ানের জনপ্রিয় ও সফল সংগঠক বিকাশের প্রাক্তন সভাপতি জাকির হোসেনকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয়। সম্মাননা পদক তুলে দেন সংগঠনের বর্তমান সভাপতি কামনাশিষ দেব।
গত ২১ ফেব্রুয়ারি বুধবার বাংলাদেশি কমিউনিটি অ্যাসোসিয়েশন অব সাসকাচুয়ান (বিকাশ) আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা উপলক্ষে সাসকাচুয়ান প্রদেশের রাজধানী রিজাইনার পার্লামেন্ট ভবনে ১ম বারের মত আর সাসকাটুন শহড়ের সিটি হল প্রাঙ্গণে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও অর্ধনমিত করা হয়।
২১ ফেব্রæয়ারি সকাল ১১টায় প্রভাতফেরি শেষে সাসকাটুনের অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন প্রবাসী বাংলাদেশীরা। এরপর সাসকাটুনের সিটি হলে সাসকাটুন মেয়র শার্লী ক্লার্ক বিকাশের সভাপতি কামনাশীষ দেব আর উপস্থিত বিকাশের সদস্যদের নিয়ে বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করেন। এসময় সকল শহীদদের স্মৃতির প্রতি সম্মান জানিয়ে উপস্থিত সকলের কন্ঠে ধ্বনিত হয় জাতীয় সঙ্গীত ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালবাসি।’ প্রায় একই সময় সাসকাচুয়ানের জনপ্রিয় ও সফল সংগঠক বিকাশের প্রাক্তন সভাপতি জাকির হোসেন প্রবাসী বাংলাদেশীদের নিয়ে রিজাইনার পার্লামেন্ট ভবনে ১ম বারের মত পতাকা উত্তোলন ও অর্ধনমিত করেন। ১৮ ফেব্রুয়ারি রবিবার শিশু-কিশোরদের জন্য এক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার প্রতিযোগীরা ১৯৫২ সালের বাঙালির বিরত্মগাঁথা আর ভাষা আন্দোলনের বিভিন্ন দিক রং-তুলিতে ফুটিয়ে তুলে খুব সুন্দর করে। প্রবাসে ভিন্ন সংস্কৃতিতে থেকেও শিশু-কিশোরদের দেশীয় ইতিহাস আর ঐতিহ্য তাদের মননে বিকশিত হচ্ছে এটা আবারো প্রমাণিত হল।
বিকাশের সভাপতি কামনাশীষ দেব কঠিন পরিশ্রমে নির্মিত শহীদ মিনারের জন্য আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। হিমাংকের নিচে প্রায় চল্লিশ (-৪০ ডিগ্রি) উপেক্ষা করে শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে আর সকল অনুষ্ঠানকে সফল করার জন্য সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন জানিয়ে অমর একুশের সমাপ্তি টানেন।

শেয়ার করুন