উদীচীর স্বাধীনতা দিবস ও সত্যেন সেন জন্মজয়ন্তী পালন

8

টরন্টোতে জামিল চৌধুরীর ভাষা ও সংস্কৃতি রক্ষার জন্য তরুণদের প্রতি আহ্বান
অখিল সাহা, টরন্টো: বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী কানাডা সংসদের স্বাধীনতা দিবস ও সত্যেন সেন জন্মজয়ন্তী পালন অনুষ্ঠানের আলোচনা ও স্মৃতিচারণ সভায় অংশ নেন বাংলাদেশ টেলিভিশনের প্রথম মহাপরিচালক ভাষা বিজ্ঞানী ও শিক্ষাবিদ জামিল চৌধুরী। তিনি বাঙালির ভাষা ও সংস্কৃতি ধ্বংস প্রতিরোধ করে জাতীয় স্বকীয়তা প্রতিষ্ঠার জন্য তরুণ প্রজন্মের প্রতি আহ্বান জানান এবং তিনি মনে করেন স্বাধীনতা আন্দোলনকালের চেয়ে বর্তমানে জাতির সামাজিক, রাজনৈতিক, সাংস্কৃতিক ও ভাষার চেতনাগত অবস্থান অনেক পশ্চাৎপদ। এছাড়াও মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে বাঙালির জেগে উঠা ও দেশ স্বাধীন করতে একাত্তর ও মুক্তিযুদ্ধের প্রকৃত চেতনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশ ও জনগণের প্রকৃত মুক্তির জন্য তরুণ প্রজন্মের প্রতি তাঁরা আহ্বান জানান। “বীরের কন্ঠে বীরত্ত¡ গাথা” শীর্ষক যুদ্ধের মাঠের প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতার বর্ণনা ও শিশু-কিশোরদের চিত্রাংকন ও লেখা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে উদীচীর পুরস্কার প্রদানে অংশ নেওয়া মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ আরো মনে করেন, দেশ স্বাধীন হয়েছে ঠিকই কিন্তু তাঁদের আকাংক্ষা ও জনগণের আকাংক্ষার বাস্তবায়ন থেকে দেশ এখনো অনেক দুুরে। কানাডা বসবাসরত মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিচারণ অনুষ্ঠানে কানাডায় অবস্থানরত বিভিন্ন সেক্টরের যুদ্ধে অংশ নেওয়া বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মাশুক মাহমুদ, ড: আজিজুল হক, গৌরাঙ্গ দেব, সঞ্জিত দাস এবং সোহরাব হোসেন। এছাড়াও মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ইলিয়াস মিয়া বিশেষ কারণে যোগদান করতে পারেননি। হল ভর্তি তরুণ প্রজন্মের শিশু-কিশোর ও প্রবাসীর উপস্থিতিতে বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনায় শেষ হয় ৪৯তম স্বাধীনতা দিবস পালন ও বিপ্লবী সত্যেন সেনের জন্মজয়ন্তীর অনুষ্ঠানমালা। এছাড়াও কানাডা উদীচী সংসদের পক্ষ থেকে সভাপতি সুভাষ দাশ ৭১-এর গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি প্রতিষ্ঠায় নিরলস কাজ করে যাওয়ার পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করেন।
গত ২৩শে মার্চ শনিবার সকাল ১০.০০টা থেকে ২.০০টা পর্যন্ত ড্যানফোর্থ বাঙালী পাড়ার কেন্দ্রস্থল ৩০৭৯ ড্যানফোর্থ এভিনিউ-এর একসেস পয়েন্টের হলে। উক্ত আঁকা প্রতিযোগিতা ৪-৮, ৯-১৩ ও ১৪-১৮ বছরভিত্তিক তিনটি ভিন্ন ভিন্ন গ্রুপে অংশগ্রহণ করে বিপুল সংখ্যক প্রবাসী শিশু ও কিশোর। অংকনের বিষয়বস্তু ছিল মুক্তি (Freedom)। প্রতিযোগিতায় আঁকা ছবির মুল্যায়নে ছিলেন কানাডা বসবাসরত প্রথিতযশা শিল্পী তাজউদ্দিন আহমেদ, সৈয়দ ইকবাল এবং অভিজিৎ পাল। এই অংকন প্রতিযোগিতার সামগ্রিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন উদীচী কানাডা সংসদের নির্বাহী পরিষদ সম্পাদকমন্ডলী সদস্য জয় দাশ। শিল্পীরা মুল্যায়নে অংশ নেওয়া শিশু-কিশোরদের আঁকা ছবির গুনগতমান দেখে উচ্ছ¡সিত হয়ে ওঠেন এবং তাঁরা উদীচীর এই উদ্যেগের ভুয়সী প্রশংসা করেন এবং এই জাতীয় উদ্যোগে অব্যাহত রাখা এবং প্রবাসের মুলধারার সাথে এই সমস্ত উদ্যোগকে সমন্বিত করার আহ্বান জানান। পুরস্কারপ্রাপ্ত শিশু-কিশোর ক-গ্রুপে ১ম এনজেলিনা প্রামাণিক, ২য় আব্রাহাম প্রামাণিক, ৩য় জয়িতা চৌধুরী অথই; খ-গ্রুপে ১ম কাজী আজওয়াদ সায়ের, ২য় রেজওয়ানা তাবাস্সুম ফিওনা ও অয়ন বর্ধন, ৩য় কাজী আরমানী ওয়ার্দা; এবং গ-গ্রুপে ১ম অন্বিতা সাহা এমিলি, ২য় অর্ণব বর্ধন ও ৩য় তৃষা সাহা। অংকনে বিশেষ পুরস্কার দেওয়া হয় রায়ান হক।
রচনা প্রতিযোগিতার দু’টি বিষয়বস্তুভিত্তিক গ্রুপে “বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বর্তমান বাস্তবতা” এবং “বিপ্লবী সত্যেন সেনের জীবন ও কর্ম” বিষয়ের উপর রচনা মুল্যায়ন করেন জর্জব্রাউন কলেজের শিক্ষক ডঃ সুজিত কুমার দত্ত, সেন্টিনিয়াল কলেজের শিক্ষক উদীচী উপদেষ্টা টিটো খন্দকার ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ফারহানা আজিম শিউলী। তাঁরা মনে করেন, প্রবসাী প্রজন্মের মধ্যে দেশের ইতিহাস ও সংগ্রামভিত্তিক এই জাতীয় লেখা প্রতিযোগিতার সুদুর প্রসারী প্রভাব সৃষ্টি করবে, যা আজীবন তাদেরকে দেশ ও জাতির সাথে সম্পৃক্ত রাখবে। “মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বর্তমান বাস্তবতা” বিষয়ে রচনা প্রতিযোগিতায় পুরস্কারপ্রাপ্ত শিশু-কিশোর হচ্ছে ১ম অংকিতা সাহা এনজেলিয়া, ২য় আফতাব জহির ও নির্বাচিতা রহমান, ৩য় রায়ান জামান মৃধা; এবং “বিপ্লবী সত্যেন সেনের জীবন ও কর্ম” বিষয়ে পুরস্কার পেয়েছে ১ম সাম্য সাহা, ২য় অন্বিতা সাহা এমিলি ও তৃষা সাহা, ৩য় অর্ণব বর্ধন।
বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী কানাডা সংসদের সভাপতি সুভাষ দাশ ও সাধারণ সম্পাদক মিনারা বেগম প্রথিতযশা শিল্পী ও শিক্ষকদের উদীচীর কাজে মুল্যবান সময় দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানানোর পাশাপাশি অনুষ্ঠানের আর্থিক ও অন্যান্য সহায়তাকারী ব্যক্তি-প্রতিষ্ঠান-মিডিয়া ও প্রেস ব্যক্তিবর্গসহ প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া সকল শিশু-কিশোর ও তাদের অভিভাবকদেরকেও ধন্যবাদ জানিয়েছেন। সকল প্রকার যোগাযোগের জন্য ই-মেইল: canadaudichi@gmail.com।

শেয়ার করুন