প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর ফ্লোরে হাঁটু গেড়ে বসা ছবি ভাইরাল

26

বাংলা কাগজ ডেস্ক: প্রধানমন্ত্রী ফ্লোরে হাঁটু গেড়ে বসে কথা বলছেন, নাগরিকরা বসে আছেন চেয়ারে- জাস্টিন ট্রুডোর এমন একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ার পর বাংলাদেশের মূলধারার পত্রিকায়ও ছবিটি ব্যাপক আলোচিত হয়। কানাডার বাংলা পত্রিকা ‘নতুনদেশ’ এর প্রধান সম্পাদক শওগাত আলী সাগর তার ফেসবুকে পোষ্ট করলে স্বল্পতম সময়েই সেটি ভাইরাল হয়ে যায়। একজন নাগরিক সব সময়ই সম্মানিত, এমন কি প্রধানমন্ত্রীর চেয়েও। কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো তাই মনে করেন। আর সেই কারণেই একজন নাগরিকের পায়ের কাছে বসে তিনি তার খোঁজ খবর নিতে পারেন। নতুনদেশ ডটকম
গত ৫ এপ্রিল সাংবাদিক শ্ওগাত আলী সাগর কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর একটি ছবি পোষ্ট করে লিখেন, জাস্টিন ট্রুডো আজ স্কারবোরো এসেছিলেন। রাজধানী থেকে প্রধানমন্ত্রী আসছেন- কেউ যেন তেমন টেরই পায়নি। টেলিভিশনের খবর জানিয়েছে, মেয়র জন টরিকে সাথে নিয়ে তিনি কমিউনিটি হাউজিংয়ের উন্নয়নে বড় ধরনের বিনিয়োগের ঘোষণা দিয়েছেন।
বাংলাদেশি কমিউনিটির নেতা, লিবারেল পার্টির আবুল আজাদ ফেসবুকে কয়েকটি ছবি পোস্ট করেছেন। ছবিগুলোতে দেখা যায়, প্রধানমন্ত্রী হাঁটু গেড়ে মাটিতে বসে নাগরিকদের সাথে কথা বলছেন। আর নাগরিকরা বসে আছেন চেয়ারে। প্রধানমন্ত্রীর জন্য কেউ দাঁড়াননি পর্যন্ত। পেছনের দিকে একটি চেয়ারে বসে আছেন স্কারবোরো সাউথওয়েস্টের এমপি এবং মন্ত্রী বিল ব্লেয়ার। প্রধানমন্ত্রী ফ্লোরে হাঁটু গেড়ে বসে কথা বলছেন, আর স্থানীয় এমপি পেছনে বসে আছেন, নাগরিকের পাশে বেঞ্চে পায়ের উপর পা তুলে বসে আছেন সিটি মেয়র– চিত্রটা ভাবতে পারেন? কিন্তু এটাই বাস্তবতা। প্রধানমন্ত্রী, এমপি, নাগরিক- আলাদা করার কোনো কারণ নেই।
ছবিতে দেখেন, প্রধানমন্ত্রীকে নিরাপত্তারক্ষীরা ঘিরে রাখেননি। আমাদের আজাদ ভাই তার পেছনে দাঁড়িয়ে আছেন। একটা দেশের এগুলোই আসলে সৌন্দর্য “
ছবিটি অল্প সময়েই বাংলা ভাষাভাষীদের নজর কাড়ে। শ্ওগাত আলী সাগরের ্ওয়াল থেকে ছবিটি অনেকেই শেয়ার করতে থাকেন। ঢাকার বেশ কয়েকটি জাতীয় দৈনিক সাংবাদিক শ্ওগাত আলী সাগরের ফেসবুকের উদ্ধৃতি দিয়ে ছবিটি প্রকাশ করে। বাংলাদেশ প্রতিদিন এই লেখাটি প্রকাশ করলে সেটি ফেসবুকে এক লাখের বেশি শেয়ার হয়।

শেয়ার করুন