হামিলটন ডাউন টাউন মসজিদে : ফেরদৌস জাহানের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া ও মুনাজাত অনুষ্ঠান

67

গত ২৫শে ফেব্রুয়ারি রবিবার স্থানীয় হামিলটন ডাউন টাউন মসজিদে মরহুমা ফেরদৌস জাহানের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে এক বিশেষ মুনাজাত ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে কমিউনিটির সম্মানীত নেতৃবৃন্দসহ বিপুল সংখ্যক বন্ধু ও পরিবারের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। স্থানীয় এমপি মি: বব ব্রাটিনা দোয়া ও মুনাজাত পর্বে অংশগ্রহণ করে সমবেদনা জ্ঞাপন করেন শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি। অনুষ্ঠানের আয়োজক মরহুমার দুই ছেলে তাবারক জাহান সম্রাট ও মাসরুর জাহান শান্তসহ পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করে স্থানীয় মেয়র ফ্রেড আইজেন বারগার এক শোকবার্তা বাংলাদেশ এসোসিয়েশন অব হামিলটন-এর সাবেক সভাপতি, আবাকানের ফাউন্ডার মেম্বার ও বতৃমান সাউথ এশিয়ান এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক তাবারক জাহান সম্রাটের নিকট প্রেরণ করেন।
মরহুমা ফেরদৌস জাহান ছিলেন শেরেবাংলার ঘনিষ্ঠ সহচর আব্দুর রহিম ইছাপুরীর কন্যা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা সাহিত্যে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করার পর তিনি শিক্ষিকা হিসেবে যোগদান করেন টাঙ্গাইলের বিন্দুবাসিনী স্কুলে। শিক্ষা অধিফতরের উপপরিচালক পদেও তিনি আসিন ছিলেন। তবে শেরপুর গার্লস হাইস্কুলের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষিকা হিসাবেই তার দীর্ঘ কর্মজীবন। সাহিত্য অনুরাগী ও সমাজসেবী হিসাবে বহুল পরিচিত ফেরদৌস জাহান ১৯৯৭ সালে কর্মজীবনে অবসর লাভের পর কানাডায় পাড়ি জমিয়েছিলেন। কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রের বাংলা দৈনিক ও সাহিত্য পত্রিকায় নিয়মিত লেখালেখি করতেন। অধুনালুপ্ত সাপ্তাহিক বেগম পত্রিকায়ও তার অনেক লেখা মুদ্রিত হয়েছে। তাঁর প্রকাশিত বই-এর মধ্যে উল্লেখিত কবিতার বই ‘অপরাহ্ন’ ও ‘স্মৃতির আয়না’। মৃত্যুকালে তিনি দুই ভাই, এক বোন, দুই পুত্র ও পাঁচ কন্যা রেখে গেছেন।

শেয়ার করুন