রংপুরেকে অপেক্ষায় রেখে ফাইনালে কুমিল্লা

4

অনলাইন ডেস্ক : জিতলেই ফাইনাল, এমন ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল রংপুর রাইডার্স ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। অবশেষে বিপিএলের ৫ম আসরের চ্যাম্পিয়ানদের হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে কুমিল্লা।

টসে জিতেই ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল মাশরাফি বিন মুর্তজা। কিন্তু ব্যাট করতে নেমে অ্যালেক্স হেলস ও এবি ডি ভিলিয়ার্স বিহীন রাইডার্স প্রথম থেকেই ধুকতে শুরু করে। যদিও ক্রিস গেইলের মন্থর গতির ৪৬ রান দলকে বড় সংগ্রের পথ দেখায়।

শেষ পর্যন্ত বেনি হাওয়েলের ঝড়ো ফিফটিতে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৬৫ রানের চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেয় তারা। জবাব দিতে নেমে দারুণ শুরু করে ইমরুল কায়েসের কুমিল্লা। যদিও দলের ৩৫ রানের সময় আউট হয়েছিলেন দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। কিন্তু বাকি সময়টা কুমিল্লাকে ফাইনালের স্বপ্ন দেখাতে থাকেন এভিন লুইস ও এনামুল হক বিজয়।

৩৯ রান করে বিজয় যখন আউট হন তখন দলের স্কোর বোর্ডে ১২৫ রান।
এরপর অবশ্য লুইসকে এক পাশে রেখে ব্যাটে ঝড় তোলেন শাসমুর রহমান শুভ। ১৫ বলের ইনিংস ৪ চার ও ২ ছয়ের মারে ৩৪ রান করে দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যান জাতীয় দল থেকে বাদ পড়া এই দেশি তারকা।

লুইস ৫৩ বলে ৫ চার ও ৩ ছয়ের মারে অপরাজিত থাকেন ৭১ রান করে। ম্যাচ সেরাও হন এই ক্যারিবীয়ান। দু’জনের অপরাজিত জুটিতে ৮ উইকেটের বড় জয়ে বিপিএলের ৬ষ্ঠ আসরের ফাইনাল নিশ্চিত করে ভিক্টোরিয়ান্সরা। অন্যদিকে প্রথম কোয়ালিফায়ারে হারলেও ফাইনালের স্বপ্ন এখনো শেষ হয়ে যায়নি রংপুরের। তবে বুধবার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে ঢাকা ডায়নামাইটসকে হারাতে পারলেই মিলবে ফাইনালের টিকিট।

দিনের এলিমিনেটর ম্যাচে চিটাগং ভাইকিংসকে হারিয়ে ঢাকাও বাঁচিয়ে রেখেছে ফাইনালের স্বপ্ন। প্লে অফের নিয়ম আনুসারে বুধবার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে লড়বে প্রথম কোয়ালিফায়ারের হারা দল রংপুর। তারা মুখোমুখি হবে এলিমিনেটরে জয়ী দল ঢাকার বিপক্ষে। বলার অপেক্ষা রাখেনা ফাইনালে ইমরুল কায়েস, তামিদের প্রতিপক্ষ হতে লড়াই নামবে দেশের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি ও টেস্ট- টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

২০১৫ বিপিএলের তৃতীয় আসরে ফাইনালে চ্যাম্পিয়ান হয়েছিল কুমিল্লা। আবারও তাদের সামনে সুযোগ এসেছে আরো একটি শিরোপা ঘরে তোলার। এখন শুধু অপেক্ষা কে হবে তাদের প্রতিপক্ষ! মাশরাফি নাকি সাকিবের দল?

শেয়ার করুন