র‌্যাঙ্কিং ধরে রাখাটাই চ্যালেঞ্জ

52

স্পোর্টস ডেস্ক : টেস্টে প্রথমবারের মতো আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ের ৮-এ উঠে এসেছে বাংলাদেশ। এ নিয়ে উচ্ছ্বাসের শেষ নেই ক্রিকেটারদের। তবে সেই ২০০০ সালে ক্রিকেটের অভিজাত ঘরানা টেস্টে পা রেখেছিল টাইগাররা। এরপর কেটেছে ১৮ বছর। কিন্তু র‌্যাঙ্কিংয়ে শেষ স্থানটি যেন পিছুই ছাড়ছিল না। অবশ্য ২০০৫ এ জিম্বাবুয়ে টেস্ট থেকে নির্বাসনে গেলে ৯-এ ওঠার সুযোগ হয়।
এরপর শুরু হয় আটে ওঠার লড়াই। তবে হারতে হারতে এতটাই বিবর্ণ হয়ে গিয়েছিল এ দেশের টেস্ট যে শুরু হয় সমালোচনা। প্রশ্ন ওঠে টেস্ট মর্যাদা নিয়ে। কিন্তু গেল পাঁচ বছরে বদলে যায় দৃশ্য। নাঈমুর রহমান দুর্জয়ের হাত ঘুরে টেস্ট ক্রিকেটের নেতৃত্ব এখন সাকিব আল হাসানের হাতে। তাদের এ প্রাপ্তি যেমন আনন্দের তেমনি ধরে রাখাটাও চ্যালেঞ্জ মনে করেন নাঈমুর রহমান। এছাড়াও এ দেশের টেস্ট দলের সেরা অধিনায়কদের একজন হাবিবুল বাশার সুমন মনে করেন এখন আরো এগিয়ে যাওয়াটাই কঠিন। আর এ সাবেক দুই অধিনায়ক এগিয়ে যাওয়ার পথ মসৃণ রাখতে ঘরোয়া ক্রিকেট ও পাইপলাইনকে আরো শক্তিশালী করার প্রতিই জোর দিয়েছেন। দুর্জয় দৈনিক মানবজমিনকে বলেন, ‘আমার জন্য সংবাদটি অনেক আনন্দের। ভীষণ ভালো লেগেছে। সেই সঙ্গে আমি মনে করি এখন এটি ধরে রাখাই আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ।’
দীর্ঘ এক যুগেরও বেশি সময় অপেক্ষার পর এমন প্রাপ্তি নিয়ে দুর্জয় বলেন, ‘দেখেন আমাদের পেছনে উপরে যে ৩-৪টি দল আছে তাদের সঙ্গে পয়েন্ট ব্যবধান খুব বেশি না। এখন আমাদের যেমন টেস্ট খেলতে হবে তেমনি পয়েন্ট নিয়ে ভাবতে হবে। যে কারণে আমাদের পাইপলাইন আরো মজবুত করতে হবে। ঘরোয়া ক্রিকেটে চারদিনের ম্যাচ আরো বেশি বেশি করে খেলতে হবে। যেন টেস্ট ক্রিকেটার উঠে আসে ভালো মানের।’ বর্তমানে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের হাই পারফরম্যান্স ইউনিটের চেয়ারম্যান হিসেবে কাজ করছেন দুর্জয়। এরই মধ্যে পাইপলাইনে ক্রিকেটার বাড়াতে তিনি হাতে নিয়েছেন নানা পরিকল্পনাও। এনিয়ে দুর্জয় বলেন, ‘এইচপি এবং ‘এ’ দল নিয়ে তো নানা পরিকল্পনা আছেই। তবে এইচপি নিয়ে কাজ করার সুযোগটা কম। যে কারণে আমি মনে করি ঘরোয়া ক্রিকেটেও আরো মজবুত করতে হবে। যেন এখান থেকেও পাইপলাইনে ক্রিকেটার উঠে আসে। এগিয়ে যেতে হলে আমাদের পরিকল্পনাটা আরো ভালোভাবে ধরে রাখতে হবে।’

‘৮ থেকে এগিয়ে যাওয়াই চ্যালেঞ্জ’- হাবিবুল বাশার
অন্যদিকে দেশের সফল টেস্ট অধিনায়ক হাবিবুল বাশার সুমন মনে করেন ৮ম স্থান ধরে রাখার চেয়ে এগিয়ে যাওয়াই বড় চ্যালেঞ্জ। তিনি বলেন, ‘আমি তো ভীষণ খুশি। আমরা এজন্য কতটা অপেক্ষা করেছি তা বলার অপেক্ষা রাখে না। এখন ৮ম স্থান ধরে রাখার চেয়ে আমি মনে করি আমাদের সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়াই কঠিন। আমাদের সামনে সাতে, ছয়ে বা পাঁচে যাওয়ার সুযোগ। আমি মনি করি এটি আমাদের বড় চ্যালেঞ্জ। আর একটা বিষয় হলো আমাদের যতটা সময় অপেক্ষা করতে হয়েছে ৮ এ যেতে এখন ছয়ে যেতে ততোটা সময় লাগবে না। আপনারা দেখবেন সামনের দুটি বছর যদি দল ভালোভাবে খেলে যেতে পারে তাহলে অবশ্যই দ্রুতই সম্ভব হবে।’
টেস্টে ভালো করতে হলে দেশের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের মান বাড়ানোর পাশাপাশি পাইপলাইনও মজবুত করার কথা দীর্ঘদিন থেকেই হয়ে আসছে। এ নিয়ে কতটা অগ্রসর বিসিবি? জাতীয় দলের বর্তমান সহযোগী নির্বাচক হিসেবে কাজ করা হাবিবুল বাশার বলেন, ‘আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটের মান এখন অনেক বেড়েছে। সেই সঙ্গে পাইপলাইনেও ক্রিকেটার তৈরি হচ্ছে। তবে আমি মনে করি আরো সুযোগ আছে আমাদের কাজ করার। এ নিয়ে কাজ হচ্ছেও। আমাদের সামনে আরো টেস্ট খেলা আছে। এখন যে দলটি আছে আশা করি তারা ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারবে।

শেয়ার করুন