মেয়র আনিসুল হকের মৃত্যুতে ক্যুইবেক আওয়ামী লীগের শোক প্রকাশ

29

বাংলা কাগজ, মন্ট্রিয়ল: এফবিসিসিআই ও বিজিএমইএর সাবেক সভাপতি, ব্যবসায়ী ও জনপ্রিয় টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক এর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ক্যুইবেক, কানাডা।
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ক্যুইবেক, কানাডা এর সভাপতি মুন্সী বশীর ও সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন সুইট স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানান, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র আনিসুল হক মহোদয়ের মৃত্যুতে (ইন্না লিল­াহে ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন) আমরা গভীরভাবে শোকাহত এবং মর্মাহত। মরহুমের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি এবং তাঁর রূহের মাগফেরাত কামনা করছি। আল­াহপাক তাঁকে জান্নাতবাসী করুন। আমীন।
প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলেন, আনিসুল হক বেঁচে থাকলে সুন্দর একটা নগরী উপহার দিতে পারতেন। সেভাবেই এগোচ্ছিলেন তিনি।
সফল উদ্যোক্তা আনিসুল হকের ?সুনাম ছিলো সর্বজনবিদিত। তিনি তার অর্পিত দায়িত্ব পালনে দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। একজন কর্মনিষ্ঠ ও বিনয়ী মানুষ হিসাবে তিনি সর্বমহলে সমাদৃতচ ছিলেন। সমাজ সেবার নানা কর্মকাণ্ডের মধ্যেও নিজেকে যুক্ত রেখেছিলেন। জীবদ্দশায় নানামুখী কর্মকাণ্ডে যুক্ত রেখে সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে নিজেকে ঘনিষ্ঠ করে তুলেছিলেন আনিসুল হক। তাঁর অনুপস্থিতি দেশের জন্য ক্ষতি হয়ে গেল। সত্যিকারের একজন দেশপ্রেমিককে হারালাম। না ফেরার দেশে চলে গেলেও সামাজিক-অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক ক্ষেত্রে তার ভূমিকা দেশবাসীর কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।
উলে­খ্য, আনিসুল হক ৩০ নভেম্বর লন্ডনের স্থানীয় সময় ৪টা ২৩ মিনিটে এবং বাংলাদেশের স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার রাত ১০টা ২৩ মিনিটে পরলোক গমন করেন।
পরে ২রা ডিসেম্বর শনিবার বিকেল (বাংলাদেশের স্থানীয় সময়) ৫টা ১২ মিনিটে তাঁর দাফন সম্পন্ন হয়। বিকেল সোয়া ৪টায় রাজধানীর আর্মি স্টেডিয়ামে তাঁর দ্বিতীয় জানাজা সম্পন্ন হয়। এর আগে পহেলা ডিসেম্বর শুক্রবার জুমার নামাজের পর লন্ডনের সেন্ট্রাল মসজিদে আনিসুল হকের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

শেয়ার করুন