৪৮ বছরের লিভ টুগেদার অতঃপর বিয়ে

124

বাংলা কাগজ ডেস্ক : টানা ৪৮ বছর বিবাহ ছাড়াই লিভ টুগেদার করেছেন তারা। এ সময়ে ছেলেমেয়ে হয়েছে তাদের। নাতিপুতি হয়েছে। অবশেষে তাদেরকে বিয়ের পিঁড়িতে বসানো হলো। রীতি অনুযায়ী বিয়ে পড়ানো হলো। এখন তারা সামাজিক রীতি অনুযায়ী স্বামী-স্ত্রী।
উদয়পুরের ঝাদল ফালাসিয়া ব্লকের গ্রাম পারগিয়াপাড়া। সেখানেই বসবাস দেবদাস কালাসুয়া (৮০) ও মাগডু বাই (৭৬)-এর। অবশেষে তাদের বিয়ে দেয়া হলো। এ খবর দিয়েছে অনলাইন টাইমস অব ইন্ডিয়া। এতে বলা হয়, দেবদাস কালাসুয়া তখন বিবাহিত। তিনি পাশের গ্রামের মাগডু বাইকে সঙ্গে নিয়ে পালালেন একদিন। তাকে সঙ্গে নিয়ে চলে এলেন নিজের গ্রামে। সেখানে তার প্রথম স্ত্রী চম্পা বাই ও সন্তানরা থাকে। কিন্তু বিষয়টি স্বাভাবিকভাবে নিতে পারেন নি চম্পা বাই। তিনি সন্তানদের নিয়ে চলে যান ফালাসিয়ায়। অন্যদিকে বান্ধবী মাগডু বাইকে নিয়ে নিজের আদিভিটায় রয়ে যান দেবদাস। কিন্তু প্রথম স্ত্রী ও মাগডু দু’জনের সঙ্গেই অব্যাহত থাকে তার সম্পর্ক। কিন্তু স্থানীয় রীতির আওতায় তাদের কোনো গ্রহণযোগ্যতা নেই। তাদের সম্পর্ককে কেউ মেনে নিতে পারে না। ফলে তাদেরই সন্তানরা তাদের বিয়ের আয়োজন করতে থাকে, যা মেনে নেয় তার সমাজ। মঙ্গলবার পালিত হয় ভঞ্জনা রীতি। এদিন কনের বাড়ি যায় বরযাত্রী। তারা কনেপক্ষকে ৫০ কেজি চাল দেন উপঢৌকন হিসেবে। তার জবাবে কনের বাড়ি থেকে পাঠানো হয় ১০ কেজি চাল। দেবদাসের ছেলে অর্জুন লাল। তিনি একজন স্কুলশিক্ষক। তিনি বলেছেন, সামাজিক গ্রহণযোগ্যতার জন্য তার পিতামাতা অধীর হয়ে ছিলেন। তবে রীতি অনুযায়ী বিয়ে না হওয়ায় সমাজ তা মেনে নিচ্ছিল না। ফলে পঞ্চায়েত সদস্যরা বসে উভয় পক্ষের মধ্যে সমঝোতা করে দেন। ৪৮ বছর পরে মাগডু বাইকে স্ত্রী হিসেবে ঘরে তোলেন দেবদাস।

শেয়ার করুন