একুশ সালের একুশ টরন্টোর ডেন্টোনিয়ায়

0
119
Sponsor Advertisement

মোশাররফ হোসেন, টরন্টো : একুশ সালের মহান একুশে ফেব্রুয়ারি টরন্টোর ডেন্টানিয়া পার্কে নির্মিতব্য স্থায়ী শহীদ বেদিতে অনুষ্ঠিত হবে। গত একুশে ফেব্রুয়ারির প্রথম প্রহরে ড্যানফোর্থ-এলডন মোড়ের ঘরোয়া রেস্টুরেন্ট সংলগ্ন বাংলা ভাষার শহীদ মিনার বেদিতে পুষ্পস্তবক দেয়ার পর টরন্টো সিটি মেয়র জন টরি একথা বলেন।

আসছে গ্রীষ্মকালে বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের আদলে মিনার নির্মাণ কাজ শুরু করা হবে ডেন্টোনিয়া পার্কের দক্ষিণ-পশ্চিম কোণে। এজন্য জায়গা চূড়ান্ত করা হয়েছে বলে শহীদ মিনার নির্মাণ সংশ্লিষ্ট কমিটি সূত্রে জানা গেছে । টরন্টো সিটি কর্পোরেশন একাজে প্রয়োজনীয় সকল সহযোগিতা করবে বলে তারা জানান। নির্মাণ কাজ সময়মত শেষ হলে “বাংলা টাউনের ভালবাসার অস্থায়ী মিনার” স্থায়ী রূপ নেবে ডেন্টোনিয়া পার্কে । ২০ ফেব্রæয়ারি মধ্যরাত থেকে ২১ ফেব্রুয়ারি দিনভর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের কর্মসূচি নেয়া হবে ।

এবারের একুশ, টরন্টো: এবারের মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ২০ ফেব্রুয়ারি মধ্যরাতে টরন্টোর বাংলা টাউনে বাঙালির ঢল নেমেছিল। একুশের প্রথম প্রহরে হিমশীতল আবহাওয়া উপেক্ষা করে “আমার ভায়ের রক্তে রাঙানো, একুশে ফেব্রুয়ারি … আমি কি ভুলিতে পারি ..” গান গেয়ে শিশু- কিশোার, যুব -যুবতী,সহ বাঙালি, কানাডিয়ান একুশের প্রথম প্রহরে ড্যানফোর্থ-এলডনের মোড়ের ঘরোয়া রেষ্টুরেন্ট সংলগ্ন চত্বরের অস্থায়ী শহীম মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। টরন্টো মেয়র জন টরি, ন্যাথানিয়েল এরিস্কন স্মিথ এমপি, ডলি বেগম এমপিপি, টরন্টোর বাংলাদেশ কনসুলেটের কনসাল জেনারেল নাঈম আহমেদ, সাবেক মন্ত্রী মারিয়া মিন্না, সিটি কাউন্সিলার ব্রাডফোর্ড , প্রথমে শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক র্অণ করেন। এরপর অন্টারিও আওয়ামী লীগ, ঢাকা বিশ্বববিদ্যালয় এলমনাই, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এলমনাই, প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় এলমনাই, কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় এলমনাই, পিডিআই, বিসিসি, উদিচী শিল্পী গোষ্ঠী, টরন্টো ফিল্ম ফোরাম, বিয়ানিবাজার সমিতি, চট্টগ্রাম সমিতি, কুমিল্লা সমিতি, টাঙ্গাইল, খুলনা, ফেনী, নোয়াখালী, ফরিদপুর সমিতি, ঘরোয়াস- বিভিন্ন সংগঠন একে একে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

ভালবাসার এ অস্থায়ী শহীদ মিনারের সাংগঠনিক কমিটির চেয়ারম্যান সৈয়দ সামসুল আলম তার বক্তব্যে সহযোগিতার জন্য সকল বাঙালি কানাডিয়ানকে ধন্যবাদ জানান ।
অটোয়ায় একুশ : মহান একুশের প্রথম প্রহরে অটোয়ায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মিজানুর রহমান দূতাবাসের সহকর্মিদের নিয়ে অটোয়া সিটি হলের অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন। বিকেলে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে রয়াল কানাডিয়ান লিজিয়ন হলে শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সকলকে মুগ্ধ করে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ, কানাডা, চীন, ভারত, শ্রীলংকা, ফ্রান্স ও জ্যামাইকার শিল্পীরা গান ও নৃত্য পরিেেবশন করে । এছাড়া বঙ্গবন্ধু, বাংলাদেশ ও একুশের ওপর তথ্যচিত্র প্রদর্শণ করা হয় ।

Sponsor Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here